সাভারে ধর্ষণের অভিযোগে পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টার লিমিটেডের এক কর্মচারী আটক

সাভারে ধর্ষণের অভিযোগে পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টার লিমিটেড থেকে নাজমুল মিয়া নামের (২২) এক কর্মচারীকে আটক করা হয়েছে। রোববার সাভার মডেল থানায় এক তরুণী ধর্ষনের অভিযোগ করলে তাকে আটক করা হয়।

পুলিশ জানায়, সাভারের থানা বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টার লিমিটেড এর চিকিৎসকের সহকারী হিসেবে কর্মরত এক তরুণীর সাথে সম্পর্ক গড়ে তুলে একই স্থানে কর্মরত অভিযুক্ত নাজমুল মিয়া। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে নাজমুল বিভিন্ন সময়ে ধর্ষণ করে। পরে নাজমুলকে ওই তরুণী বার বার বিয়ের জন্য চাপ দিলেও তাতে রাজি হয়নি সে।

বিষয়টি পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টার লিমিটেড সাভার শাখার ম্যানেজার জহুরুল ইসলামকে জানালে তিনি কোন ব্যবস্থা না নিয়ে বরং ওই যুবকের পক্ষ নিয়ে উল্টো হয়রানী করে ও অশ্লিল ভাষায় গালিগালাজ করেন ওই তরুণীকে। এছাড়া পূর্বেও এই জহুরুলের বিরুদ্ধে প্রতিষ্ঠানটির চিকিৎক ও কর্মচারীদের সাথে অসদাচরণের অভিযোগ রয়েছে।

পরে ভুক্তভোগী ওই তরুণী সাভার মডেল থানায় ধর্ষণের অভিযোগ করলে অভিযুক্ত ধর্ষক নাজমুলকে আটক করে। বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানিয়েছে সাভার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসীনুল কাদির। এ ঘটনায় সাভার মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ধর্ষণের স্বীকার ওই তরুণী মানিকগঞ্জ জেলার সিংগাইর থানার শেওড়া গ্রামের আব্দুল মতিনের মেয়ে বলে জানা গেছে।

মো: আলী হোসেন
এফ টিভি নিউজ, সাভার।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*